শুক্রবার,  ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  সকাল ১০:২৫

অগ্নিদুর্গতরা পেল মানবতার সাড়া

ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ , ০৯:২৪

স্টাফ রিপোর্টার
খেটে খাওয়া মানুষগুলোর সহায়-সম্বল যা ছিল তা কেড়ে নিয়েছে ভয়াবহ আগুন। কোনো রকম প্রাণে বাঁচলেও ঠাঁই হয়েছে খোলা আকাশের নিচে। এভাবে তীব্র শীতে রাত কাটাতে হয়েছে তাদের। তবে ভোরের আলো ফোটার সাথে সাথে তাদের আশার আলো যেন ফুটতে শুরু করে। অসহায় এসব মানুষের সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দেয় অনেকে। মানবতার সাড়া পেয়ে তারা আবার শুরু করে নতুন জীবন।
গত রোবরার রাতে বায়েজিদ থানাধীন অক্সিজেন এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তিনটি কলোনির ১১৫টি পরিবার। অগ্নিকাণ্ডে তারা যখন মাথা গোঁজার ঠাঁইও হারিয়ে ফেলে, তখন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে ব্যবসায়ী সমাজ ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসে। কেউ তাদের হাতে তুলে দেয় পুরাতন কাপড়-চোপড়, কেউবা খাবার বা অন্যান্য সামগ্রী, কেউ-বা তুলে দেয় নগদ অর্থ। গতকাল দ্বিতীয় দিনে এসে অনেককেই সাময়িক মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেয়া হয়েছে। সাথে দেয়া হয়েছে নতুন করে সংসার শুরু করার প্রয়োজনীয় সব সামগ্রী।
এ বিষয়ে গতকাল ৭ নম্বর পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোবারক আলী বলেন, আগুনে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাদের বেশিরভাগই খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষ। এসব পরিবার এখানে ভাড়ায় থাকত। অগ্নিকাণ্ডে তারা সম্পূর্ণ নিঃস্ব হয়ে গেছে। তাদের বাঁচিয়ে তুলতে সর্বস্তরের মানুষ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।
অগ্নিকাণ্ডের পর প্রথমে মাথা গোঁজার ঠাঁই না পেলেও পরে ক্ষতিগ্রস্তদের বিভিন্ন জায়গায় সরিয়ে নেয়ার কাজ চলছে বলে জানান কাউন্সিলর। তিনি বলেন, আপাতত মাথা গোঁজার ঠাঁই হিসেবে বিভিন্ন খালি বাসায় তাদের রাখা হচ্ছে। এছাড়া স্থানীয় মোহামেডান ক্লাব ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পশু জবাইয়ের জন্য নির্ধারিত স্থানের ছাউনিতে কিছু পরিবারকে আশ্রয় দেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে বাড়ির মালিকরা নতুন করে ঘর তৈরি করতে শুরু করেছেন। আশা করছি এ সংকট শীঘ্রই কেটে যাবে।
স্থানীয়রা জানান, পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড কমিশনার কার্যালয়, ব্যবসায়ী শাহজাহান লিটন, নারী নেত্রী সোনিয়াসহ আশপাশের বাসিন্দাদের অনেকেই ক্ষতিগ্রস্তদের নগদ অর্থ প্রদানের মাধ্যমে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আপাতত ৪ থেকে পাঁচ লাখ টাকার একটি ফান্ড তাদের সহায়তার জন্য তৈরি হয়েছে। এসব অর্থ দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো নতুন করে সংসার শুরু করার জন্য হাড়ি-পাতিল থেকে শুরু করে বিছানার চাদর, কম্বল, মশারিসহ যা যা প্রয়োজন সব ব্যবস্থা করে দেওয়া হচ্ছে।
এছাড়া পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ড কমিশনার কার্যালয় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য সর্বস্তরের মানুষের কাছে আহ্বান জানিয়েছে।
কাউন্সিলর বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ২ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ দেওয়ার কথা রয়েছে। এর পাশাপাশি পরিবার প্রতি ৩০ কেজি করে চাউল বিতরণের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করা হয়েছে। আশা করছি, এটা পাওয়া যাবে।
এছাড়া আমার (কাউন্সিলর) কার্যালয়ের উদ্যোগে একটি ফান্ড তৈরি করে প্রয়োজনীয় সকল জিনিস ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (আজ) এসব ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে বলে জানান কাউন্সিলর।
এদিকে ঘটনার দ্বিতীয় দিনেও তাদের পুড়ে যাওয়া ঘরের ধ্বংসস্তূপের মধ্যে ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের নিয়ে অনেকেই দিন কাটিয়েছেন। এ সময় নিজ সীমানার ধ্বংসস্তূপের ছাইয়ের মধ্যে মূল্যবান কিছু খোঁজার চেষ্টা করছিলেন তারা।

Total View: 603

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter