শুক্রবার,  ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  বিকাল ৩:০৭

আশুলিয়ায় যুবলীগ নেতাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী

জানুয়ারি ১৯, ২০১৮ , ০০:১৯

সাভার প্রতিনিধি

আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক মোঃ কবীর হোসেন সরকারকে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ উঠেছে।
একজন জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা হওয়ায় নেতাকর্মীদের মনে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় আমিনুল ইসলাম সরকার অভিযোগ করে বলেন, রহমান সরকার ও তার পুত্র উজ্জল সরকার, হামিদ সরকার ওরফে শাহাজান, আব্দুল আজিজ, মোতালেব সরকার এবং মামুন সরকার এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু ও মামলাবাজ। এরা জাল দলিলের মাধ্যেমে মানুষের জমি জবর দখল করে। তাদের কারণে বহু লোক তাদের ভিটা মাটি হারিয়েছে। প্রতিবাদ করলে মিথ্যা মামলা ও হামলা করে সর্বশান্ত করে। যার ফলে তাদের বিরুদ্ধে সহজে কেউ মূখ খুলতে সাহস পায়না। ২০১৮ সালের ১৩ জানুয়ারী আশুলিয়া যুবলীগের আহবায়ক কবির হোসেন সরকারের ক্রয়কৃত ৪৯ শতাংশ জমি জোর করে দখল করতে চেষ্টা করে উজ্জ্বল সরকার গংরা। এর প্রতিবাদ করলে জমি চাষাবাদকারী আবদুল বারেক মন্ডলকে পিটিয়ে এবং কুপিয়ে আহত করে। এরপর উল্টা যুবলীগ নেতা কবির সরকার ও বারেক মন্ডলসহ কয়েকজনের নামে মিথ্যা চাদাবাজীর মামলা দায়ের করে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পূর্ব বাগবাড়ি মৌজার আরএস খতিয়ান-৭, আর.এস দাগ নং-১০৮, ১০৯ ও ১১০ মোট জমির পরিমাণ ৪৯ শতাংশ। জমিতে একটি পুরাতন সাইনবোর্ড রয়েছে। সে অনুযায়ী জমির মালিক মোহাম্মদ আলী গং, বায়ণা সূত্রে মালিক মোঃ কবির হোসেন সরকার।

স্থানীয়রা জানায়, এই জমিটির মালিক মোহাম্মদ আলী গং, বায়ণা ও ক্রয়সূত্রে মালিক মোঃ কবির হোসেন সরকার। তিনি পাঁচ থেকে ছয় বছর ধরে এই জমিটি ভোগ করে আসছে। ওই জমি বারেক মন্ডল নামে এক লোক চাষাবাদ করত। ১৩ তারিখে বারেক জমি চাষাবাদ করতে গেলে উজ্জ¦ল সরকারসহ তার লোকজন তাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক মোঃ কবির হোসেন সরকার জানান, ৫/৬ বছর পূর্বে উক্ত জমিটি আমি ক্রয় করি এবং ভোগ করে আসছি। আবদুর রহমান ও উজ্জল গংদের সাথে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। তারা জাল দলিলের মাধ্যেমে আমার এই সম্পত্তি দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। গত ১৩জানুয়ারী সকালে বারেক মন্ডল আমার জমিতে চাষাবাদ করতে গেলে এমন সময় ভূমিদস্যু উজ্জ্বল ও তার দলবলসহ বারেককে বেধরক মারপিট করে আহত করে। তার আর্ত-চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য মেডিকেলে ভর্তি করে। এ ঘটনায় তারা নিজেরা বাঁচতে আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক একটি মামলা দায়ের করে।

এ বিষয়ে উজ্জ্বল সরকার বলেন, রেকর্ডকৃত মালিক ইসমাইল ও আব্দুল জব্বারের কাছ থেকে এই জমিটি তমিজ উদ্দিন মিস্ত্রি ক্রয় করে। পরে আমি এ জমিটি ক্রয় করে ৩০ বছর ধরে ভোগ করে আসছি।
১৩ তারিখে কবির হোসেন সরকার ও তার লোকজন আগ্নেয়াস্ত্র সজ্জিত্ব হয়ে গুলি বর্ষণ করে আতংক সৃষ্টি করে জমি দখলের পায়তারা করছিলো। পরে আমি তাদের বিরুদ্ধে জয়দেবপুর থানায় মামলা দায়ের করি। সংঘর্ষ জমি নিয়ে অথচ মামলা করলেন চাঁদাবাজি নিয়ে এমন প্রশ্ন করলে তিনি এড়িয়ে যান।

Total View: 1250

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter