বুধবার,  ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  সকাল ৬:১২

“একটি বাড়ি একটি ব্রীজ” তার উপর লোহার গেইট !

এপ্রিল ১২, ২০১৯ , ১১:১১

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
শরীয়তপুর সদর উপজেলার চিতলিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের কাশীপুর হিন্দু পাড়া গ্রামে রয়েছে পল্লী চিকিৎসক জগদীশ বিশ্বাসের বাড়ি। সেই বাড়িতে প্রবেশের জন্য একটি ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে। বহিরাগত এবং গবাদী পশু ঠেকাতে সেই ব্রীজের উপর একটি লোহার গেইট নির্মাণ করা হয়েছে।
এই খবরটি হঠাৎ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। সৈয়দ অনিক নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ব্রীজটি নিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন। তা তুলে ধরা হলো-
“শরীয়তপুরের সম্মানিত জেলা প্রশাসক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা এবং সিনিয়র নেতাকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। শুধু মাত্র একটি পরিবারের সুবিধার কথা ভেবে সরকার ৩৮ লাখ ৮৯ হাজার ৭শ ৭৫ টাকা ব্যয়ে ৫০ ফুট দৈর্ঘ্যরে একটি ব্রীজ নির্মাণ করেছে। ওই পরিবার ব্যতীত অন্য কেউ যেন সেতুটি ব্যবহার করতে না পারে তার জন্য সেতুটির উপর নির্মাণ করা হয়েছে লোহার গেইট। বড়ই ভাবনার বিষয় ! কে এই ভদ্রলোক যার একার সুবিধার জন্য এতোগুলো টাকা খরচ করে সরকার এই সেতু নির্মাণ করে দিলেন। আবার সেই সেতুটি সাবেক সংসদ সদস্য মোজাম্মেল হক এসে উদ্বোধন করে দিলেন। জানি না সে কোন ভদ্রলোক। শুধু জানতে চাই এই টাকাগুলো কাদের ? এই টাকাগুলো তো আমাদের ঘাম ঝড়ানো টাকা, দেশের সম্পদ। তাহলে কেনো এই ভাবে অপচয় করা হয়েছে। দয়া করে যারা দায়িত্বে আছেন এই বিষয়টা নিয়ে একটু ভাববেন আশা করি। ছোট মুখে বড় কথা লেখার জন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত”।
ফেসবুকে ওই ব্যক্তির স্ট্যাটাসের পর সরেজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। দেখা যায়, পল্লী চিকিৎসক জগদীশ বিশ্বাসের বাড়িতে প্রবেশ করতেই খালের ওপর এই বাড়ির জন্য একটি ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে। ব্রীজের পাশে আর কোন রাস্তা নেই। এই ব্রীজের ৫শ গজের মধ্যে আরও ২টি ব্রীজ রয়েছে। যা দিয়ে এলাকার জনসাধারণ যাতায়াত করে। পল্লী চিকিৎসক জগদীশ বিশ্বাসের বাড়ির ব্রীজ দিয়ে অন্য কোন বাড়িতে যাওয়ার সুযোগ নেই। একক ব্যবহারের জন্যই নির্মাণ করা হয়েছে ব্রীজটি। খোঁজ নিয়ে আরও জানা যায়, পল্লী চিকিৎসক জগদীশ বিশ্বাসের ছেলে দুলাল বিশ্বাস সাবেক এমপি বিএম মোজাম্মেল হকের এপিএস এর দায়িত্ব পালন করছেন।
পল্লী চিকিৎসক জগদীশ বিশ্বাসের বড় ছেলে সুভাস বিশ্বাস জানান, শরীয়তপুর ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মোজাম্মেল হক ছোট বেলা থেকে তার কাছে চিকিৎসা নিতেন। আমার বাবা এমপি সাহেবের পারিবারিক ডাক্তার ছিলেন। এমপি সাহেব আমার বাবাকে অনেক ভালোবাসতেন। তাই সাবেক এমপি সাহেব তার বিশেষ বরাদ্দে থেকে এই ব্রীজটি নির্মাণ করেছেন।
এ ব্যাপারে চিতলিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার আকুল কুমার মন্ডল বলেন, এই ব্রীজটি নির্মাণের জন্য সাবেক এমপি বিএম মোজাম্মেল হক তার বিশেষ বরাদ্দ থেকে বরাদ্দ দেন। ব্রীজেরউপর গেইট দেয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, চুরি ডাকাতি ঠেকাতে এবং গরু-ছাগলের যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য গেইট দেয়া হয়েছে।

Total View: 460

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter