সোমবার,  ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  রাত ১:৩৭

জোবেদার আনন্দময় ভ্রমন কাহিনীর শেষ পর্ব

জুলাই ২২, ২০১৮ , ০০:০৪

জোবেদা আক্তার

দিল্লী ভ্রমনের ষষ্ঠ দিন অর্থাৎ শেষ দিনের প্রথমার্ধ কাটলো ডঃ আদর্শ শর্মার সাথে। দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম অংশ কাটলো হিমাংশু যোশির আই.সি.টি সেশনে। ভ্যালেডিক্টোরী সেশনে অংশ নিতে বাংলাদেশ থেকে গিয়েছিলেন প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জয়েন্ট সেক্রেটারি মোঃ ফজলুর রহমান এবং ডেপুটি সেক্রেটারি মোঃ নুরুল আমিন।

প্রথমে নুরুল আমিন স্যারকে এবং পরে ফজলুর রহমান স্যারকে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন আই.এম.আই কর্তৃপক্ষ। তারপর সেখানে বক্তব্য রাখেন দিল্লীর আই.এম.আই’র ডিরেক্টোর প্রফেসর পি.কে ভৌমিক, আই.এম.আই’র চেয়ারপার্সন ইরফান এ রিজভি এবং আই.এম.আই’র এক্সিকিউটিভ এডুকেশন ও হেড অফ এম.পি.ডি বর্ণালী চাকলাদার। আর বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জয়েন্ট সেক্রেটারি মোঃ ফজলুর রহমান এবং ডেপুটি সেক্রেটারি মোঃ নুরুল আমিন।

প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষে আমি শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করি। এরপর উপস্থিত অতিথিদেরকে আমাদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা উপহার দেয়া হয়। আই.এম.আই এর পক্ষ থেকে আমাদেরকে স্বীকৃতি সনদ ও শুভেচ্ছা উপহার দেয়া হয়। হাই টি আপ্যায়ণের মধ্য দিয়ে বিকেলে শেষ হয় ছয় দিন ব্যাপী আমাদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি।

আমরা দল বেধে বাইরে বেড়িয়ে পড়ি। শপিং, খাওয়া দাওয়া, ঘোরাফেরার পর রাতে আই.এম.আইতে ফিরে আসি। এই কয়টা দিন যেন এক পরিবারের বাঁধনে বাঁধা ছিলাম। রাত গড়িয়ে যায়, কথা ফুরায় না। গল্প শেষ হয় না। আমি মোবাইলে রেকর্ড করে নেই নাছরিন আপার গান, মঞ্জু রেকর্ড করে নেয় আমার কবিতা আবৃত্তি। বলে, তোমাকে খুব মিস করবো। পরের দিন ভোরে রওয়ানা হই এয়ারপোর্টের উদ্দেশ্যে। ১০ টার ফ্লাইট চড়ে বাংলাদেশ। রাত সাড়ে নয়টা পর্যন্ত অধিদপ্তর। সেখান থেকে যে যার বাসায়। মনে সুপ্ত আশা ছিল, আবার মিলব সবে প্রাণের উৎসবে।

আমাদের এই ট্রেনিংয়ের মূল উদ্দেশ্য ছিল দুই দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার সম্পর্কে জানাশোনা এবং দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন। ভারত আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র। তাদের এবং আমাদের প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা অনেকটাই কাছাকাছি। তারপরেও কিছু পার্থক্য রয়েছে। আমাদের শিক্ষা কারিকুলাম যেমন কেন্দ্রীয় ভাবে প্রণীত হয়, তাদেরটা সে রকম নয়। তাদেরটা প্রাদেশিক ভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। শিক্ষা ব্যবস্থার কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভারতের তুলনায় বাংলাদেশ ঈর্ষনীয় ভাবে এগিয়ে আছে। যেমন, আমাদের দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয় বিহীন এলাকা নেই বললেই চলে, এখন সরকারের পরিকল্পনা হলো নতুন বিদ্যালয় স্থাপনের পরিবর্তে বিদ্যালয় ভবন সম্প্রসারণ। এছাড়া প্রতিটি বিদ্যালয়ে সেনিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিদ্যালয় গুলোতে ওয়াস ব্লক নির্মাণ চলছে। পক্ষান্তরে, ভারতে এখনো প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে বিদ্যালয় নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। সেনিটেশনের অবস্থা মোটেও সন্তোষজনক নয়। যা তাদের শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার অন্যতম কারণ। তবে, আই.সি.টি ব্যাবহার এবং পাঠদানে ভারতের বিদ্যালয় গুলোর মধ্যে কিছু বেসরকারি বিদ্যালয় অনেক এগিয়েছে।

এই ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে আমরা প্রতিবেশি দেশের কাছে নিজেদের দেশ, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সুনামের সাথে উপস্থাপনের সুযোগ যেমন পেয়েছি। পাশাপাশি তাদের থেকে জানা বিষয়গুলো আমাদের নিজ কর্মক্ষেত্রে প্রয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। যা আমাদের পেশাগত উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

আমার এ ভ্রমন কাহিনীর শিরোনাম ছিল যোবেদার আনন্দময় ভ্রমন কাহিনী। সব আনন্দের পেছেনেই কোন না কোন বেদনা লুকিয়ে থাকে। এই লেখা যার উৎসাহে শুরু করেছিলাম, যিনি এই কর্মযজ্ঞের প্রতিটা ক্ষেত্রে অভিভাবকের মতো, বন্ধুর মতো, সহকর্মীর মতো আমাদেরকে আগলে রেখেছিলেন, প্রত্যেকটি কাজে সহায়তা করেছিলেন তিনি আর কেউ নন। তিনি হচ্ছেন আমাদের প্রিয় রেজাউল করিম স্যার। সফর থেকে ফেরার মাত্র কিছুদিন পড়েই তিনি আমাদেরকে বেদনার সাগরে ভাসিয়ে পরলোক গমন করেন। আমাদের সকল আনন্দ হরষে বিষাদে পরিণত হয়। যে স্মৃতি হবার কথা ছিল আনন্দের, আজ সে স্মৃতি বিষাদে পরিণত হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা যেন তার বিদেহী আত্মার শান্তি দান করেন, এই প্রার্থনা করি।

Total View: 822

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter