বৃহস্পতিবার,  ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  বিকাল ৪:১৭

প্রতিমন্ত্রীর সামনেই প্রবীণ সাংবাদিক লাঞ্ছিত, বিএমএসএফ’র প্রতিবাদ

ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮ , ০৮:৪২

স্টাফ রিপোর্টার
রাজবাড়ীতে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীর সামনে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন জেলার প্রবীণ সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সানাউল্লাহ (৭২)।

মোহাম্মদ সানাউল্লাহ বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কমের জেলা প্রতিনিধি এবং রাজবাড়ী জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি।

ঘটনার পর ক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা আওয়ামী লীগের বিজয় দিবসের কর্মসূচি বর্জন করে এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানোর পাশাপাশি বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ)’র কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট, সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর এবং বিএমএসএফ শরীয়তপুর জেলা শাখার সভাপতি এম.এ ওয়াদুদ মিয়া এবং সাধারণ সম্পাদক ফোর জি ইশ্রাফিল এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

সাংবাদিক মোহাম্মদ সানাউল্লাহ রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

এ বিষয়ে সাংবাদিক মোহাম্মদ সানাউল্লাহ জানান, সকালে জেলা আওয়ামী লীগ পুষ্পমাল্য অর্পণ করার উদ্দেশ্যে রেলগেট শহিদ স্মৃতিস্তম্ভে যাওয়ার সময় তিনি ছবি তুলতে যান। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কাজী ইরাদত আলীর অফিসের কর্মচারী রিংকু তার সামনে এসে পড়েন। তিনি রিংকুকে বারবার সরে যেতে বললেও রিংকু সরে যাননি। একপর্যায়ে রিংকু তাকে জামার কলার ধরে স্মৃতিস্তম্ভের বেদিতে ফেলে দেন। এতে তিনি মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পান। ঘটনার আকস্মিকতায় তিনি হতভম্ব হয়ে পড়েন।

এই প্রবীণ সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা আরও বলেন, এমন ঘটনায় তিনি অপমানিত ও চরম বিব্রত বোধ করেছেন।

এদিকে ঘটনার পর শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, তার সহোদর ভাই জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী ওই প্রবীণ সাংবাদিকের কাছে এসে ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

অপরদিকে এ ঘটনায় বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান কভার করতে আসা দৈনিক জনকণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি আহসান হাবীব, দৈনিক সমকালের জেলা প্রতিনিধি সৌমিত্র শীল চন্দন, দৈনিক কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর হোসেন, দৈনিক প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি এজাজ আহমেদ, চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের জেলা প্রতিনিধি সুমন বিশ্বাসসহ জেলার কর্মরত সাংবাদিকরা আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠান বর্জন করে তাৎক্ষণিক এর প্রতিবাদ করেন এবং ঘটনার প্রতি তীব্র নিন্দা জানান।

রাজবাড়ী জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক করিম ইসহাক জানান, ‘আমরা ন্যক্কারজনক এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। তিনি আমাদের সাংবাদিকদের অভিভাবক। তার লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা দুঃখজনক ও কষ্টের। আমরা শিগগিরই এ ব্যাপারে কর্মসূচি দেবো।’

Total View: 347

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter