রবিবার,  ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  সন্ধ্যা ৭:১৩

ফরিদপুরে মাদক ব্যবসায়ী সন্তানের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা

মে ১০, ২০২১ , ১১:২৪

স্টাফ রিপোর্টার
ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার ব্রাক্ষণকান্দা গ্রামে সন্তান আক্কাস মিয়ার অন্যায় অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে মা নুরজাহান বেগম ফরিদপুরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে সন্তানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয়রা বলছেন, প্রকাশ্য দিবালোকে আক্কাস মিয়া মাদক ব্যবসা করছে অথচ প্রশাসন তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই গ্রহণ করছে না। জরুরী ভিত্তিতে আক্কাস মিয়াকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা না হলে এলাকা মাদক সেবীদের দখলে চলে যাবে বলে ধারণা স্থানীয়দের।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার ব্রাক্ষণকান্দা গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার ছেলে আক্কাস মিয়া একজন মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবী। শুধু তাই নয়, তিনি এলাকার একজন প্রসিদ্ধ সুদের ব্যবসায়ী এবং লোভী প্রকৃতির মানুষ। তিনি অতি লোভের কারণে মা এবং আপন ভাইদের সম্পত্তি দখল করতেও তিনি দ্বিধা বোধ করেন না। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২২ এপ্রিল সকাল আনুমানিক ১০টায় আক্কাস মিয়া তার দলবল নিয়ে মা নুরজাহান বেগমের বাড়িতে হামলা চালায়। মাকে অমানষিক নির্যাতন করার পর মায়ের কাছে থাকা গহনা এবং নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের সাথে আলাপ কালে জানা যায়, আক্কাস মিয়ার শুরু মুলত মুরগী ব্যবসা করে। মুরগী ব্যবসায় তিনি কেজিতে ৯শ গ্রাম দিতেন। তাই তাকে এলাকায় ৯শ গ্রাম বলে ডাকে।

আক্কাস মিয়া একজন মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবী। এই মাদক ব্যবসার পাশাপাশি তিনি মুরগী এবং সুদের ব্যবসাও করেন। মাদক ব্যবসা এবং সুদের ব্যবসা করে এখন তিনি অনেক টাকার মালিক হয়েছেন। এই টাকার গরমে তিনি অন্যের জমি এবং দোকান জোরপূর্বক দখল করা শুরু করেছেন। দোকান এবং জমি দখল করতে গিয়ে তিনি আপন ভাইকেও ছাড় দেননি। তিনি স্থানীয় মাদকসেবীদের নিয়ে একটি বাহিনী গঠন করেছেন। আর সেই বাহিনী দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন। তার অত্যাচারে এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ।

স্থানীয় সাহিদ মিয়া, আকরাম মিয়া, আকলিমা আক্তার বলেন, আক্কাস মিয়া একজন মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবী। তিনি স্থানীয় মাদকসেবীদের নিয়ে একটি বাহিনী গঠন করেছেন। সেই বাহিনী দিয়ে এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। তিনি অতি লোভী মানুষ। অতি লোভের কারণে আপন ভাইদের জমি এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জোর করে দখল করে নিয়েছে। এলাকার মাতুব্বরেরা তার টাকার কাছে মাথা নত করে আছে। সে যতো অন্যায় অত্যাচারই করুক না কেন এলাকার মাতুব্বরেরা তা দেখে না। তার অন্যার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে তার মা তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে আক্কাস মিয়ার সাথে যোগাযোগ করতে গেলে তাকে এলাকায় পাওয়া যায়নি। বেশ কয়েকবার তার মুঠোফোনে কল দিলে মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। এলাকার স্থানীয়রা বলছেন আক্কাস মিয়া এলাকায় নেই, সে পলাতক রয়েছে। যার কারণে এ সংবাদে আক্কাস মিয়ার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

মামলার বাদী নুরজাহান বেগম বলেন, আক্কাস মিয়া আমার সন্তান। সে একজন মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবী। সে খুব লোভী মানুষ। সে জোর পূর্বক অন্যের জমি দখল করে। সে আমার এবং আমার অন্য সন্তানদের জমি জোর পূর্বক দখল করেছে। সে প্রায়ই আমাকে শারীরিক নির্যাতন করে। তার নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দিতে বাধ্য হয়েছি। আমি চাই আক্কাস মিয়াকে আইনের আওতায় আনা হোক।

Total View: 796

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter