বৃহস্পতিবার,  ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  বিকাল ৪:০০

ফাস্ট ফুডের নামে আসলে আমরা কী খাচ্ছি?

জানুয়ারি ২৭, ২০১৯ , ০৯:৩৫

সংলাপ ৭১ লাইফ ডেক্স
মানুষের জৈবিক চাহিদাগুলোর একটি হলো খাদ্য। বেঁচে থাকতে হলে খাবার গ্রহণ আমাদের করতেই হবে। কিন্তু ইদানীং এ খাবারই আমাদের জীবনকে দীর্ঘায়িত করার পরিবর্তে সংক্ষিপ্ত করে দিচ্ছে। কর্মব্যস্ত জীবনে অনেকের খাবার তৈরির সময়টুকুও হয়ে ওঠে না। তাই তারা ঝুঁকে পড়ছেন ফাস্ট ফুডের দিকে। সবাই আজ জাঙ্ক ফুডের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। এ খাবারের প্রতি বাচ্চাদের আগ্রহ আরও বেশি।

জাঙ্ক ফুড এক ধরনের কৃত্রিম খাদ্য। যে কোনো ফাস্ট ফুড খাবারকেই জাঙ্ক ফুড বলে। এসব খাদ্যে চর্বি, লবণ, কার্বনেট ইত্যাদি ক্ষতিকারক দ্রব্যের আধিক্য বেশি থাকে, যা গ্রহণ করা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক। আলুর চিপস, বার্গার, চকোলেট চাউমিন, এগরোল, পিজ্জা, কোক, ইনস্ট্যান্ট কফি, আরও কত কী। আমরা বাবা-মায়েরা অনেকেই জানি না, বাচ্চাদের শরীরের মারাত্মক ক্ষতি করছে এই জাঙ্ক ফুড। অনেক সময় শিশুর মৃত্যুরও কারণ হয়ে দাঁড়ায় এ খাবার।

ফাস্ট ফুড আসলে কি?
Fast অর্থ দ্রুত। দ্রুত যে খাবারটি খেয়ে নেয়া যায়, সেটাই ফাস্ট ফুড। আরও সোজা কথায়, দৌড়ের ওপর যে খাবার খেয়ে চটপট উদরপূর্তি করা যায়, সেটাই ফাস্ট ফুড। Junk-এর আভিধানিক অর্থ লবণাক্ত মাংস অথবা আবর্জনা। সাধারণত যেসব তৈরি খাবারে ক্যালরি, চর্বি বা চিনি-লবণ বেশি থাকে, তাদের ‘জাঙ্ক ফুড’ বলে। জাঙ্ক ফুডের প্রতুলতা দিন দিন আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য এক প্রকার হুমকি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। প্রতিদিন জাঙ্ক ফুড গ্রহণে মানুষ স্থূলকায় হওয়ার পাশাপাশি অসুস্থও হয়ে পড়ছে।

ফাস্ট ফুডে কি কি ক্ষতি হয়:
ফাস্ট ফুড খেলে কোনো না কোনো রোগে আক্রান্ত হবেন অনিবার্যভাবে। ফাস্ট ফুড বহুদিন ধরে খাবার উপযোগী করে রাখা হয়, তাই এতে জীবাণু থাকে, যা আমাদের শরীরে প্রবেশের সাথে সাথে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে নষ্ট করে দেয়। ত্বকের নানা সমস্যা দেখা দেয়। ফাস্ট ফুড মানেই বাসি খাবার, যা খাওয়ার ফলে ত্বকের সতেজতা ও জেল্লা কমে যায়। স্কিনের নানা সমস্যা দেখা দেয়। ব্রণ, অ্যালার্জি ইত্যাদি দেখা দেয়। পেট খারাপের সমস্যা হয় ফাস্ট ফুড থেকে। অধিক মাত্রায় ওজন বেড়ে যায়। ফাস্ট ফুড খাওয়ার জন্যই মোটা হওয়ার সংখ্যা এত বেড়ে গেছে। ফাস্ট ফুডে কার্বোহাইড্রেড জাতীয় উপাদান বেশি থাকে। কার্বোহাইড্রেড মানে শর্করা, যা শরীরের জন্য প্রয়োজন। কিন্তু পরিমাণের অধিক কার্বোহাইড্রেড বা শর্করা শরীরে নানা সমস্যা তৈরি করে। বিশেষ করে মেদ বাড়িয়ে দেয়। অতিরিক্ত চর্বি জমতে থাকে। ওজন বেড়ে যাওয়ায় শরীর স্বাভাবিকতা হারায়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক প্রতিবেদন অনুসারে, বিগত ৪০ বছরে স্থূলকায় মানুষের হার প্রায় দশগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশাপাশি বৃদ্ধি পেয়েছে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ কিংবা ডায়াবেটিসের মতো অনেক সমস্যা। ফাস্ট ফুড খাওয়ার জন্যই সারাবিশ্বে মোটা হওয়ার প্রবণতা অনেক বেড়ে গেছে। Institute for Health Matrix and Evaluation- এর এক রিপোর্ট অনুসারে, বাংলাদেশে পূর্ণবয়স্ক মানুষের মধ্যে শতকরা প্রায় ১৭ শতাংশ এবং শিশুদের ক্ষেত্রে সাড়ে ৪ শতাংশ স্থূলকায়।

স্মার্ট ফুড কী?
মূলত স্মার্ট ফুড বলতে বিভিন্ন ধরনের খাদ্যসামগ্রী বুঝায়, যা সুস্থ জীবনধারা এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য ইতিবাচক ভূমিকা রাখে। লাগাতার অভিজ্ঞতা ও গবেষণালব্ধ তথ্যাদি থেকে জানা গেছে, কিছু কিছু খাবার এবং তার সমন্বয়কৃত ব্যবহার অনেকাংশে মানুষকে রোগমুক্ত রাখতে প্রভূত সহায়তা করে। আর এ খাবারগুলোই স্মার্ট ফুড হিসেবে অভিহিত। বারোমাসী ষড়ঋতুর বাংলাদেশে আবহাওয়া অনুযায়ী মৌসুমি ফলকে স্মার্ট ফুড হিসেবে ধরা হয়। মৌসুমী ফল এবং মানুষ একই আবহাওয়ার সাথে যোগসূত্রে গাঁথা বিধায় উদ্ভূত দৈহিক চাহিদার পরিপূরক ভূমিকা পালন করে ভারসাম্য রক্ষা করে থাকে।

বাজারে খোলামেলা হোটেলে খাবার-দাবার বা ফাস্ট ফুড সর্বদা পরিত্যাজ্য। আর সুপেয় পানির ওপর সর্বক্ষেত্রে গুরুত্ব দিতে হবে। সুশৃঙ্খল জীবনধারা ও স্মার্ট ফুড আমাদের আয়ু অনেকাংশে বাড়িয়ে দিতে পারে। সুন্দর এ পৃথিবীতে যদি বেশিদিন বাঁচতে চাই, তা হলে স্মার্ট ফুডের ওপর অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে।

Total View: 388

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter