বৃহস্পতিবার,  ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  ভোর ৫:২৪

বিঝারীর এফ.পি.আই সোহাগের বিরুদ্ধে এখনও কোন ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন

মে ২২, ২০১৮ , ১৪:০৬

আবদুল বারেক ভূইয়া
শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের এফ.পি.আই মোঃ নূরুজ্জামান সোহাগ কর্তৃক তার সহকর্মী পরিবার কল্যাণ পরিদর্শীকা নাহিদা পারভীনকে অফিস চলাকালিন জুটা দিয়ে পেটানোর ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে এখনও কোন প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। ঘটনার এক মাস উত্তীর্ণ হলেও উপ-পরিচালক কোন স্বার্থে নূরুজ্জামান সোহাগের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা না নিয়ে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। পরিবার পরিকল্পনার মতো একটি স্পর্শকাতর জায়গায় সোহাগের মতো চরিত্রহীন লোক কিভাবে চাকুরী করে তা নিয়ে যখন প্রশ্ন উঠেছে ঠিক তখনই ঐ ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোটা অংকের ঘুষের বিনিময়ে প্রভাবিত হয়ে মূল ঘটনা থেকে সরে এসে বিপরীতমুখী কাল্পনিক ঘটনা সাজিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। এ দিকে এফ.পি.আই মোঃ নূরুজ্জামান সোহাগ সহকর্মী পরিবার কল্যাণ পরিদর্শীকা নাহিদা পারভীনের সাথে সামাজিক মিমাংসার জন্য বিভিন্ন ধরণের ভয়-ভীতিসহ চাপ প্রয়োগ করছেন। পাশাপাশি সাপ্তাহিক বালুচর এবং সংলাপ ৭১.কমের সম্পাদক ও প্রকাশক এম.এ ওয়াদুদ মিয়া এবং সাংবাদিক আবদুল বারেক ভূইয়াকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে মামলাসহ বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে। এ ব্যাপারে সাপ্তাহিক বালুচর এবং সংলাপ ৭১.কমের সম্পাদক ও প্রকাশক এম.এ ওয়াদুদ মিয়া পালং মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী লিপিবদ্ধ করেছেন। আর পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মোঃ মাজাহারুল হক চৌধুরীর বলেন তদন্ত প্রতিবেদন এসেছে। অপরাধী যেই হোক তাকে কোন ভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। অপরদিকে ঘটনার এক মাস উত্তীর্ণ হলেও উপ-পরিচালক সোহাগের ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় তিনি যে প্রশাসনিক ভাবে অযোগ্য তা প্রমাণিত হয়েছে। কারণ অফিস চলাকালীন একজন মহিলা কর্মীকে আরেক জন দায়িত্বশীল পুরুষ জুতা পেটা করবে আর উপ পরিচালক তার কোন প্রশাসনিক ব্যবস্থা না নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদনের অপেক্ষা করে কাল ক্ষেপন করবেন এটা মোটেই কাম্য নয়। ঘটনার বিবরণে প্রকাশ ৯ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এফ.পি.আই মোঃ নূরুজ্জামান সোহাগ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে লাগানো একটি ফ্যানের ক্যাপাছিটার নিয়ে পরিবার কল্যাণ পরিদর্শীকা নাহিদা পারভীনের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কটাকাটির এক পর্যায়ে এফ.পি.আই মোঃ নূরুজ্জামান সোহাগ তার পায়ের জুতা দিয়ে পরিবার কল্যাণ পরিদর্শীকা নাহিদা পারভীনকে পিটাতে শুরু করেন। তখন স্থানীয়রা এসে তাদেরকে ছাড়িয়ে দেয়। ভূক্তভোগী পরিবার কল্যাণ পরিদর্শীকা নাহিদা পারভীন বলেন, আমি রোগী দেখায় ব্যাস্ত ছিলাম। তখন এফ.পি.আই নূরুজ্জামান সোহাগ অফিসে এসে ফ্যানের ক্যাপাছিটার খারাপ দেখে আমার সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সে তার পায়ের জুতা দিয়ে পেটাতে শুরু করেন। তখন স্থানীয় কয়েক জন লোক এসে আমাকে উদ্ধার করে। সে মাঝে মধ্যেই আমার সাথে খারাপ আচোরণ করে। আমি একজন মহিলা। বয়সে সে আমার অনেক ছোট। আমাকে তার সম্মান দিয়ে কথা বলা উচিৎ। কিন্তু তিনি সেটা করেন না। তিনি মাঝে মাঝে আমাকে যৌন ইঙ্গিত দেয়ার চেষ্টা করেন। তিনি ফেসবুক চালান। ফেসবুক থেকে বিভিন্ন ধরণের পর্ণছবি ডাউনলোড করে আমাকে দেখানোর চেষ্টা করেন। আমি তাকে পাত্তা না দেয়ায় আজ সে আমাকে এতোগুলো লোকের মাঝে অপমান করলো। এ ব্যাপারে ১৭ মে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার সময় পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মোঃ মাজাহারুল হক চৌধুরীর সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, এফ.পি.আই মোঃ নূরুজ্জামান সোহাগ যে এতো ঘটনা ঘটিয়েছে আপনার সাথে আলাপ না হলে কিছুই জানতাম না। নড়িয়া উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের ডাক্তার সাহেব তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। আমি খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নেব।

Total View: 1029

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter