বৃহস্পতিবার,  ২২শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  বিকাল ৫:২৭

ভেজাল মবিলে সয়লাব শরীয়তপুর

মার্চ ৮, ২০১৮ , ০১:০২


স্টাফ রিপোর্টার
ভেজাল মবিলে সয়লাব হয়ে গেছে শরীয়তপুর। অধিক লাভের আশায় কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ীরা নকল মবিলের উপর দেশী-বিদেশী, নামী-দামী ব্রান্ডের মোড়ক লাগিয়ে এ ব্যবসা করছে। সেক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে অভিনব কায়দায় এ সব ভেজাল মবিল বিক্রি করছে। ফলে নকল মবিল ইঞ্জিনে ঢোকানোর সাথে সাথে সহসাই বিনষ্ট হয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনের চোখের সামনে এ ব্যবসা হর হামেশা চললেও তারা না দেখার ভান করছে।
জেলার ৬ টি উপজেলার আনাচে কানাচে গড়ে ওঠা মবিল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে নামী দামী ব্রান্ডের ভেজাল মবিল।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলার বিভিন্ন পরিবহনের কয়েকজন চালক জানিয়েছেন, একটি প্রতারক চক্র পোড়া মবিল সংগ্রহ করে তা লোহার কড়াইয়ে তাপ দিয়ে সাবান প্রস্তুতের ক্যামিকেল মিশিয়ে নিজেরাই তৈরী করছে মবিল। এসব মবিল বিপি, টোটাল, মবিল, এইচপি, সিনোসহ বিভিন্ন কোম্পানীর মোড়ক লাগিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীদের হাতে তুলে দিচ্ছেন।
পাশাপাশি ঐ সকল অসাদু ব্যবসায়ীরা নামী-দামী কোম্পানির আসল কার্টুনের মধ্যে ভেজাল মবিল ঢুকিয়ে বিক্রি করছেন। শুধু তাই নয় এ সকল মবিল ব্যবসায়ীরা ওজনে কম দিয়েও গ্রাহকদের সাথে প্রতারণা করে আসছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
অনেক সময় কভার ভ্যানে, মোটর সাইকেলে ও অটোগাড়ীতে করে করে বিভিন্ন দোকানে পৌছে দিচ্ছে মানহীন নকল মবিল। আর এদিকে তুলনামুলক কম দামে পেয়ে কিছু না বুঝেই গ্রাহকরা ক্রয় করছে এ ভেজাল মবিল। এসব ভেজাল মবিল ব্যবহারের কারণে মূল্যবান গাড়ির ইঞ্জিণ সহসাই অতি স্বল্প সময়ে বিকল হয়ে যাচ্ছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন মবিল ব্যবসায়ী বলেন, গ্রহকরা বেশি দামে মবিল ক্রয় করতে চান না। তাই আমরা একটু কম লাভ করে কম দামে মবিল বিক্রি করছি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে অপর আরেক জন মবিল ব্যবসায়ী বলেন, আমার কাছ থেকে মবিল কিনে আমার থেকে কম দামে কিভাবে বিক্রি করে তা বুঝে উঠতে পারছি না। নিশ্চয়ই এর মধ্যে কোন কারসাজি রয়েছে।
ট্রাক ড্রাইভার আনসার আলী বলেন, কোনটা ভেজাল আর খাঁটি তা কিছুই বোঝা যায় না। একই ধরনের মোরক লাগানো বলে আমরা খাঁটি বা ভেজাল চিহ্নিত করতে পারছি না। না বুঝে আমরা প্রতারণার শিকার হচ্ছি।
বাস ড্রাইভার হিম চন্দ্র বলেন, দোকানদারগণ নাকি সরাসরি কোম্পানির কাছ থেকে মবিল কিনে। তাই আমাদেরকে একটু কম দামে দিতে পারে।
এ সংক্রান্ত বিষয়ে বিশেষজ্ঞ মহলের মতামত হচ্ছে, ভেজাল মবিল ব্যবহারের কারণে মূল্যবান গাড়ির ইঞ্জিণ ও মবিল চালিত অন্যান্য ইঞ্জিণ সমুহের আয়ু অল্প দিনেই ধ্বংস হয়ে যায়। পরিবেশের প্রতিও রয়েছে এর মারাত্মক বিরূপ প্রভাব। এতে ভোক্তা অধিকার পদদলিত হচ্ছে।
এ ব্যাপারে পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, ভেজাল প্রতিরোধে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।

Total View: 1206

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter