মঙ্গলবার,  ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  রাত ১০:৫০

মাদক সেবনের দৃশ্য ধারণ করায় প্রকৌশলীর হাতে দুই সাংবাদিক লাঞ্চিত

জুন ১৯, ২০২০ , ১৬:২৬

স্টাফ রিপোর্টার
অফিস কক্ষে মাদক সেবনের দৃশ্য ধারণ করায় শরীয়তপুরের দুইজন সিনিয়র সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করেছেন শরীয়তপুর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান মৃদুল। তিনি শুধু লাঞ্ছিত করেই ক্ষেন্ত হননি, তাদেরকে দস্তুর মতো ঘরে আটকে রেখেছিলেন।

এ ঘটনাটি জেলার শীর্ষ কর্মকর্তাকে অবহিত করলে তিনি প্রতিনিধি পাঠিয়ে সাংবাদিকদ্বয়কে উদ্ধার করেন।

১৮ জুন বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার দিকে নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান মৃদুলের অফিস রুমে তাদেরকে লাঞ্ছিত করেছেন এবং আটকিয়ে রেখেছিলেন। এ ঘটনায় সাংবাদিকদ্বয় আইনী সহায়তা চেয়ে পালং মডেল থানায় একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন।

এ ঘটনা জানার পর জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম শরীয়তপুর জেলা শাখার আহ্বায়ক এম.এ ওয়াদুদ মিয়া এবং সদস্য সচিব বিএম ইশ্রাফিল এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

লাঞ্ছিত হওয়া সাংবাদিকদ্বয় হলেন, শরীয়তপুর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি, এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজ এবং বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি রোকনুজ্জামান পারভেজ এবং যুগ্ন সম্পাদক ও গাজি টিভির প্রতিনিধি মোঃ মানিক মোল্লা।

এ ব্যাপারে এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজ এবং বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি রোকনুজ্জামান পারভেজ বলেন, শরীয়তপুরে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতাধীন শরীয়তপুর সদর ডোমসার ইউনিয়নে প্রায় দুই কোটি টাকা ব্যায় একটি গভীর নলকুপের পানির পাম্প নির্মাণাধীন অবস্থায় অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নির্মাণাধীন কাজের স্টিমেট চেয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান মৃদুলের কাছে ফোন দেয়া হয়। এরপর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি অফিসে রয়েছে বলে সাংবাদিক মানিক মোল্যাকে ফোনে জানান। পরে ৫টার দিকে শরীয়তপুরে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কার্যালয়ের আমরা দুইজন যাই। গিয়ে দুইতলায় উঠে নির্বাহী প্রকৌশলীর অফিস কক্ষে ঢুকেই সিগারেট খেতে দেখি। পরে গাঁজার গন্ধ পাই। এ সময় আমার সঙ্গে থাকা গাজি টিভির সাংবাদিক মনিক মোল্যা ওই মাদক সেবনের দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করার চেষ্টা করে। তখন নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান মৃদুল সাংবাদিকের হাত থেকে ক্যামারা ছিনিয়ে নেয়। এক ঘন্টার মত তার অফিসের কেচি গেট আটকে রাখে আমাদেরকে মারপিট করার হুমকি দেন। এ অবস্থায় জেলা প্রাশাসককে ফোন করলে তিনি আমাদেরকে উদ্ধারের ব্যবস্থা করেন।

শরীয়তপুর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাভিশনের জেলা প্রতিনিধি শহিদুজ্জামান খান বলেন, একজন মাদকাশক্ত অফিসার অফিস কক্ষে বসে মাদক সেবক করবে আবার সাংবাদিকদের লাঞ্ছিত করবেন এটা দুঃখজনক। আমারা ওই কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করে, সুষ্ঠ তদন্ত করে বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আসলাম উদ্দিন বলেন, সাংবাদিকদের সাথে খারাপ ব্যবহার করার একটি অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ প্রসঙ্গে শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, সাংবাদিকদের সাথে ঘটনাটির বিষয়ে শুনেছি। ভুক্তভুগি সাংবাদিকদের অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়কে বলা হবে।

Total View: 324

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter