সোমবার,  ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  রাত ১২:৪৫

মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসাহ জোগাতে এদেশের সাংবাদিকরা কাজ করেছিলেন —-শহীদুল ইসলাম পাইলট

ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭ , ২৩:০৬

স্টাফ রিপোর্টার

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট বলেছেন মুক্তিযোদ্ধারা হচ্ছে সর্ব যুগের, সর্ব কালের সর্বশ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের প্রতি জাতি চিরঋণী। এ ঋণ শোধ করার জন্য আমাদের অনেক কিছু করার রয়েছে। শুধু ভাতা প্রদানই যথেষ্ট নয়। তাদের আর্থ–সামাজিক উন্নয়নে আমাদের কাজ করতে হবে। পাশাপাশি প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের খুঁজে বের করতে হবে। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের লালন পালন করা রাষ্ট্রের কর্তব্য। সকল বয়সের মুক্তিযোদ্ধাদের চাকরীতে অর্ন্তভুক্ত করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চাকরীর ক্ষেত্রে কোন বয়সের সীমাবদ্ধতা থাকা উচিৎ নয়। যে কোন বয়সের মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের চাকুরিতে নিয়োগ প্রদানের জন্য তিনি আহবান জানান।

তিনি আরও বলেন, অনেক মুক্তিযোদ্ধা অসহায় অবস্থায় দুর্বিসহ মানবেতর জীবন যাপন করছেন। অনেক মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি–ঘর, ভিটে–মাটিনেই, অনেক মুক্তিযোদ্ধা কর্মহীন। এদের খুঁজে বের করে সার্বিক সাহায্য সহযোগীতা দিয়ে পূনর্বাসন করা উচিত। কারণ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যই আমরা জাতি হিসেবে মাথা তুলে দাড়াতে সক্ষম হয়েছি। তাদের কারণে আমরা স্বাধীন স্বার্বভৌম রাষ্ট্র পেয়েছি। সুতারাং তাদেরকে সকল ক্ষেত্রে সকল সুবিধা প্রদান করতে হবে। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের যানবাহনের ভাড়া মওকুফের দাবী করেন। বিনা মূল্যে মুক্তিযোদ্ধারা যাতে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সেবা পেতে পারেন সেই ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে। সেই সাথে তিনি সঠিক ভাবে যাচাই–বাছাই করে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে এবং বাদ পড়া প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের অর্ন্তভূক্ত করার অহবান জানান।

তিনি দুঃখ করে বলেন, আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা একদিন হারিয়ে যাবে। তাদেরকে আমাদের মাঝে আর পাওয়া যাবে না। তাই তাদেরকে যথাযথ মূল্যায়ন করে স্মৃতিতে, প্রীতিতে তাদের বাঁচিয়ে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে এবং তাদের আদর্শ ও উদ্দেশ্য বুকে ধারণ করে দেশগড়ার কাজে আমদের এগিয়ে যেতে হবে।

তিনি মফস্বল সাংবাদিকদের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে এক করে বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা যেমন দেশে যুদ্ধ করেছেন সাংবাদিকরাও তেমনি সারাদেশে কলম যুদ্ধ করছেন।


তিনি বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা কম ছিলনা। মুক্তিযোদ্ধারা দেশ মাতৃকার জন্য অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধ করেছেন আর সাংবাদিকরা সেই খবর তুলে ধরে মুক্তিযুদ্ধকে চাঙ্গা করেছেন। সারাদেশের মুক্তিযুদ্ধের খবর বিশ্ববাসীর নিকট উপস্থাপন করে তাদের সমর্থন আদায় করেছেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় মুক্তিযোদ্ধারা কিঞ্চিৎ স্বীকৃতি পেলেও মফস্বল সাংবাদিকরা আজও বঞ্চিত। তিনি মফস্বল সাংবাদিকদের অধিকার প্রদানের জন্য সরকারের দৃষ্টি আর্কষণ করেন।

স্বাধীনতা সংসদের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস ২০১৭ উপলক্ষে বুধবার বিকেল ৫টায় ঢাকা শাহাবাগস্থ কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীর শওকত ওসমান মিলনায়তনে ‘বিজয় দিবসের অঙ্গীকার, মধ্যম আয়ের দেশ গড়বো এবার’ শীর্ষক আলোচনা সভা, বিজয় দিবস সন্মাননা পুরস্কার বিতরণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রখ্যাত সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম পাইলট একথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট আ.ক.ম মোজাম্মেল হক।

সংগঠনের উপদেষ্টা কেএসএনএম জহুরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং বিজ্ঞান ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এম.পি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাউথ ইস্ট ইউনিভারর্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ.ন.ম মেশকাতউদ্দিন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পীরজাদা শহীদুল হাসান, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠশিল্পী, বীর মুক্তিযোদ্ধা উমা খান, চিত্র নায়িকা নতুন, জনতা ব্যাংকের উপ–ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ফরজ আলী, প্রাইম ব্যাংকের সাবেক প্রধান ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ খান চৌধুরী, গাজিপুরের শ্রীপুর পৌরসভা মেয়র আনিসুর রহমান ও বিশিষ্ট সাংবাদিক যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ তালুকদারসহ দেশবরেণ্য ব্যক্তিবর্গ।

স্বাধীনতার ৪৬ বছরের এই প্রথম অধিকার বঞ্চিত মফস্বল সাংবাদিকদের একমাত্র সংগঠন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রখ্যাত সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম পাইলট মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার চেতনায় লালিত অরাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও বুদ্ধিদীপ্ত সংগঠন স্বাধীনতা সংসদ কর্তৃক শ্রেষ্ঠ সাংবাদিক সংগঠক হিসেবে মনোনীত হয়ে স্বাধীনতা সংসদ সন্মাননা পদকে ভূষিত হয়েছেন। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানেরস্বীকৃতি স্বরূপ যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট সাংবাদিক আব্দুস সামাদ তালুকদারকে সম্মাননায় ভূষিত করা হয়

Total View: 1245

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter