শুক্রবার,  ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  সকাল ১০:২১

যমুনা টিভি’র লাইভ অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের হামলা, বিএনপি’র ৮ নেতাকর্মী লাঞ্ছিত

জুন ৫, ২০১৮ , ০১:৫২


স্টাফ রিপোর্টার
স্থানীয় এমপি নাহিম রাজ্জাককে অতিথি না করায় একটি যমুনা টেলিভিশনের নির্বাচন সংক্রান্ত লাইভ অনুষ্ঠানে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ৫ জুন সোমবার দুপুরে শরীয়তপুরের ডামুড্যায় পূর্ব মাদারীপুর কলেজ মাঠে এ ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা অনুষ্ঠানে আসা জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদ আসলামসহ অনুষ্ঠান দেখতে আসা বিএনপি’র আট নেতাকর্মীকে লাঞ্ছিত করে।
ডামুড্যা থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে বেসরকারি টেলিভিশন যমুনা টিভির একটি সরাসরি সম্প্রচার অনুষ্ঠান হচ্ছিল ডামুড্যা উপজেলা সদরের পূর্ব মাদারীপুর কলেজ মাঠে। সেখানে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদ আহম্মেদ আসলামসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার সাত জন প্রতিনিধি অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এমন সময় সেখানে উপস্থিত হন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বাবলু সিকদার। তিনি ওই বেসরকারি টিভি’র সাংবাদিকদের কাছে জানতে চান তাকে সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাদের কেন অনুষ্ঠানে অতিথি করা হয়নি। তখন তাকে অতিথি করে অনুষ্ঠানে যুক্ত করা হয়।
পরে অনুষ্ঠান চলার সময় ডামুড্যা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রূবেল বেপারী তার সঙ্গীদের নিয়ে অতিথিদের গালাগালি করে চেয়ার থেকে উঠিয়ে দেন। তিনি বিএনপি নেতা সাঈদ আসলামকে লাঞ্ছিত করেন। তার সঙ্গে থাকা উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাহাদাৎ হোসেন, পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাসেম বেপারী, পৌরসভা যুবদলের সাবেক সভাপতি সৈয়দ শামছুল আরেফিন, উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম, ছাত্রদল নেতা জাহিদুল ইসলাম, অরবিল বেপারী এবং নাজমুল হককে লাঞ্ছিত করা হয়।
সাঈদ আহম্মেদ আসলাম বলেন, ‘আওয়ামীলীগের নেতারা টেলিভিশনের লাইভ অনুষ্ঠান চলার সময় আমার ওপর হামলা করেছে। আমার নেতাকর্মীদের মারধর করেছে।’
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বাবলু সিকদার বলেন, ‘নির্বাচনের বিষয় নিয়ে একটি টেলিভিশন লাইভ অনুষ্ঠান করছিল। সেখানে স্থানীয় আওয়ামীলীগের কোনও নেতাকে রাখেনি। আমাদের অনুমতিও নেয়নি। তাই দলীয় নেতা কর্মীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে এমন আচরণ করেছে।’
উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রূবেল মাদবর বলেন, ‘আমাদের নেতা নাহিম রাজ্জাককে বাদ দিয়ে অনুষ্ঠান করা হচ্ছিল। নেতাকে বাদ দিয়ে ডামুড্যায় কোনও অনুষ্ঠান করতে দেয়া হবে না। আর বিএনপি এখানে এসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছে। আমরা কাউকে মারধর করিনি।’
এ বিষয়ে অনুষ্ঠানের স্থানীয় সমন্বয়কারী সাংবাদিক কাজী মনিরুজ্জামান বলেন, ‘স্থানীয় এমপি নাহিম রাজ্জাক সকালে ঢাকা থেকে এসে অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে কথা দিয়েছিলেন। গত রাতেও তার সঙ্গে কথা হয়েছে। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি। অথচ, অতি উৎসাহী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা নিজেদের ক্ষমতা জাহির করতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের লাঞ্ছিত করে।’
জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি মর্মাহত। রূবেল যে ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তা ঠিক করেনি।’
ডামুড্যা থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া নিয়ে নেতাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ বিষয়ে কোনও লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।’

Total View: 975

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter