শুক্রবার,  ৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  রাত ১:২১

শরীয়তপুরে খাল ভরাট করে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ, হুমকিতে কৃষি

এপ্রিল ৫, ২০১৯ , ১৮:৩৩

স্টাফ রিপোর্টার
শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিরুদ্ধে সরকারী খাল ভরাট করে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। তারা সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়নের বালার বাজার থেকে চর সোনামুখী গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত খালটি ভরাট করে পালং সাব স্টেশন-৩ নামে একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছেন। যার প্রেক্ষিতে রুদ্রকর ইউনিয়নের জনগন ফুঁসে উঠেছে। যে কোন মূল্যে তারা বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ বন্ধ করবেন বলে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছেন।

স্থানীয় তোতা মিয়া বেপারী, ঈমান উদ্দিন খান, বাবুল ঢালী এবং সোহরাব হোসেন ঢালী বলেন, সরকার যেখানে দখলকৃত সরকারী খাল পুণরুদ্ধার করে পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করছেন সেখানে শরীয়তপুরের পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি রুদ্রকর ইউনিয়নের বালার বাজার থেকে চর সোনামুখী গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত খালটি ভরাট করে পালং সাব স্টেশন-৩ নামে একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছেন। যা এ অঞ্চলের কৃষি কাজে হুমকি স্বরূপ।

এই খালটি ভরাট করে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণ করলে রুদ্রকর ইউনিয়নের পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাবে। রুদ্রকর ইউনিয়নের কৃষি কাজে এ খালটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এ খালের পানি দিয়েই কৃষকরা তাদের জমির সেচ কাজ সম্পাদন করেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শরীয়তপুর সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়নের চর সোনামুখী মৌজায় শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি তাদের নিজস্ব অর্থায়ণে সানরাইজ এন্টারপ্রাইজ নামে এক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে পালং সাব স্টেশন-৩ নামে একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছেন। সেই বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করতে গিয়ে চর সোনামুখী গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত খালটি কিছু অংশ ভরাট করেছেন। বাকী অংশের উপর কয়েকটি পাইপ বসানো হয়েছে। যার উপর মাটি বসিয়ে পারাপারের জন্য রাস্তা নির্মাণ করা হবে। এতে করে খালটির স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে যাবে। তাই খাল ভরাট করে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ না করার দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় কৃষকরা।

এ ব্যাপারে শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার সোহরাব আলী বিশ্বাসের সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, সাব স্টেশনটি নির্মাণ করতে সাময়িক ভাবে যাতায়াতের জন্য পাইপ বসিয়ে একটি রাস্তা করা হচ্ছে। পরবর্তীতে পাইপ গুলো তুলে ঐখানে একটি বক্স কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। আমরাও চাই, খালের পানি প্রবাহ বন্ধ না হোক। কাজের স্বার্থেই আমাদেরকে এই টুকু করতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহেরের সাথে মুফোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, সরকারী খাল ভরাট করে কোন কিছু নির্মাণ করার সুযোগ নেই। আমি যতোদূর জানি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি তাদের নিজস্ব জায়গায় সাব স্টেশন নির্মাণ করছে। তারপরেও যদি সরকারী খাল ভরাট করে সাব স্টেশন নির্মাণ করে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Total View: 571

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter