মঙ্গলবার,  ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  সকাল ৭:১৬

শরীয়তপুরে মন্ত্রীর স্বজনদের ভয়ে ঘরছাড়া তিনটি পরিবার

জুন ১০, ২০১৯ , ২২:৩১

স্টাফ রিপোর্টার
শরীয়তপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীমের আপন ফুফাতো ভাই আবু বেপারীর ভয়ে পাঁচ দিন ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন সখিপুর থানার ডিএমখালি ইউনিয়নের তিনটি অসহায় পরিবার।

৬ জুন বৃহস্পতিবার রাতে মন্ত্রীর ফুফাতো ভাই আবু বেপারীর সাথে মেয়েলী ঘটনাকে কেন্দ্র করে ডিএমখালি ইউনিয়নের হকপুর এলাকার বাসিন্দা সোবাহান আকন, হুমায়ূন আকন এবং মনির আকনের বাড়িতে ঘরবাড়ি ভাংচুরসহ লুটপাট চালায় আবু বেপারীর সমর্থকরা। এরপর থেকে ভুক্তভোগীরা প্রাণ সংশয়ের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী এবং ভুক্তভোগীদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ডিএমখালি ইউনিয়নের হকপুর এলাকার বাসিন্দা সোবাহান আকনের সাথে সখিপুর থানা আওয়ামীলীগের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আবু বেপারীর মধ্যে একটি মেয়েলী ঘটনা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি সৃষ্টি হয়। এ সময় আবু বেপারীর নাক ফেটে রক্ত বের হতে দেখে তার সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। পরে রাত সাড়ে ৭টার দিকে তার কয়েকশো সমর্থকরা সোবাহান আকন, তার বড় ভাই হুমায়ূন আকন এবং ছোট ভাই মনির আকনের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও ব্যাপক লুটপাট চালায়।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, আতর্কিত এ হামলাকারীরা তাদের তিন পরিবারের প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার সম্পদ ক্ষয়ক্ষতি করে এবং গোয়ালে থাকা ২টি গরু, ৩ ভরি স্বর্নালঙ্কার, ৪টি সেলাই মেশিন এবং হাঁস-মুরগীসহ সকল প্রকার মালামাল নিয়ে যায়। এছাড়া টিভি, ফ্রিজ ভাংচুর করা সহ গ্যারেজে থাকা দুটি ইজিবাইক খালে ফেলে দেয় হামলাকারীরা। এ সময় হুমায়ূন কবির আকন ও সোবহান আকন গুরুতর আহত হয়। তারা বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

এ দিকে এ ঘটনার পর থেকেই এলাকা জুড়ে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পুণরায় হামলার ভয়ে অসহায় পরিবার তিনটি আত্মগোপন করেছে। তারা নিজেদের ঘরবাড়ি ছেড়ে বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

ভুক্তভোগী আহত সোবহান আকন বলেন, আমার শ্যালিকাকে আবু বেপারি প্রতিনিয়ত কু-প্রস্তাব দিচ্ছিল। আমি তার প্রতিবাদ করায় তার লোকজন আমাদের বাড়িতে লুটপাট চালিয়েছে। আমরাও আওয়ামীলীগ করি তারাও করে। কিন্তু তারা মন্ত্রীর ক্ষমতা দেখিয়ে আমাদের উপর হামলা করেছে। আমরা এখন তাদের ভয়ে কেউ বাড়িতেও যেতে পারছি না।

তবে এ বিষয়ে আবু বেপারী বলেন, আমার দুটি সন্তান রয়েছে। আমি কোন মেয়েকে এ ধরনের কোন কু-প্রস্তাব দেয়ার প্রশ্নই আসে না। তবে আমি আহত হওয়ার পর কে বা কারা হামলা, লুটপাট করেছে তা আমি জানি না। আমি তখন হাসপাতালে ছিলাম।

এ বিষয়ে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এনামুল হক বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে এবং পুলিশও তৎপর রয়েছে। কেউ যদি লিখিত অভিযোগ করে তবে আইনী সহায়তা প্রদান করা হবে।

Total View: 961

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter