বুধবার,  ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  ভোর ৫:৫৩

শহীদ দিবস: আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নজরদারি

ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৮ , ২৩:৩১


স্টাফ রিপোর্টার

একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহিদ দিবস নির্বিঘ্নে পালনের জন্য কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারসহ রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পাশাপাশি সারা দেশেও সতর্ক থাকবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

২০ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার বিকেল থেকেই রাজধানীর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কঠোর নজরদারি শুরু করেছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। সন্ধ্যার পর থেকেই ওই এলাকায় বহিরাগত কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। এ ছাড়া স্থানীয় অধিবাসীদেরও শহিদ মিনার এলাকা দিয়ে যেতে পড়তে হচ্ছে কয়েক দফা পুলিশি তল্লাশির মুখে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, র‌্যাব ও পুলিশের পক্ষ থেকে পুরো এলাকায় সিসিটিভি বসানো হয়েছে। একই সঙ্গে ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন স্থানগুলোতে প্রবেশের সময় তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। নিরাপত্তার ব্যবস্থার স্বার্থে বসানো হয়েছে পুলিশ ও র‍্যাব কন্ট্রোল রুম।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার দুপুরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘এবারের একুশে ফেব্রুয়ারিতে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকি নেই, তবে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারসহ কোনো জায়গায় যাতে জঙ্গিবাদী কার্যক্রম সংঘটিত না হয় সেদিকে নজর রাখা হবে।

র‍্যাবের মহাপরিচালক বলেন, ‘ঢাকাসহ সারা দেশের যেখানে র‍্যাবের ক্যাম্প রয়েছে সেসব এলাকার শহিদ মিনারগুলোর নিরাপত্তা দিবে র‍্যাব। আর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের নিরাপত্তার জন্য র‍্যাব পাঁচটি সেক্টরে ভাগ হয়ে কাজ করবে। পুরো এলাকা র‍্যাবের পক্ষ থেকে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। র‍্যাবের ডগ স্কোয়াড, স্পেশাল টিম, মোটরবাইক টিম ও মেডিকেল টিম সব সময় প্রস্তুত থাকবে।

এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি, সোমবার ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া শহিদ দিবসের নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়ে সাংবাদিকের জানিয়েছিলেন, ‘একুশে ফেব্রুয়ারিতে স্পষ্ট কোনো নিরাপত্তা হুমকি নেই। তবে সব ধরনের বিষয় মাথায় রেখেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে চার স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুরো শহিদ মিনার এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। যা কন্ট্রোল রুম থেকে মনিটরিং করা হবে। আর শহিদ মিনারে সাধারণ জনগণকে আর্চওয়ে গেটের মধ্য দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। এ ছাড়াও প্রত্যেককে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করা হবে। শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন।

Total View: 1131

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter