শুক্রবার,  ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  রাত ৪:০২

সখিপুরে সরকারি গাছ কেঁটে বিক্রি করেছে ফাহিম বেপারী

ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৯ , ০৯:৫৯

স্টাফ রিপোর্টার

ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে বেপারি কান্দি গ্রামের প্রভাবশালী ফাহিম বেপারীর বিরুদ্ধে সখিপুর হতে গৌরাঙ্গ বাজারের রাস্তায় লাগানো ১১ টি সরকারী গাছ কেঁটে বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, গাছ কাঁটায় প্রত্যক্ষ মদদ দিয়েছেন সখিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মানিক সরদার। তারই নির্দেশে গাছ কেঁটেছেন বলে দাবী করেছেন ফাহিম বেপারী।

১৬ ফেব্রুয়ারী শনিবার ফাহিম বেপারীর লোকজন গাছ গুলো কেঁটে নিয়ে বিক্রি করেছেন।

এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে ফাহিম বেপারীর বিরুদ্ধে ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাব্বির আহমেদ সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তহশীলদার শাহ আলমকে তদন্ত সাপেক্ষে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তহশীলদার শাহ আলম সরকারী গাছ কেঁটে বিক্রি করার অপরাধে ফাহিম বেপারীর বিরুদ্ধে ২০ ফেব্রুয়ারী বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সখিপুর থানায় একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন। কিন্তু সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কি এক অদৃশ্য কারণে তদন্তে ধোঁয়া তুলে অভিযোগ পত্রটি নথিভূক্ত করতে গড়িমসি করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, ফাহিম বেপারী এলাকায় অনেক প্রভাবশালী। তিনি রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ১১টি সরকারী গাছ কেঁটে নিয়ে গেছে। এসব গাছের মধ্যে রেন্ট্রি কড়ই, মেহগনী এবং চাম্বুল গাছ রয়েছে। যার বাজার মূল্য লক্ষাধিক টাকা হবে। সরকারের এসব গাছ কেঁটে নিলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অপরাধীর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

এ বিষয়ে ফাহিম বেপারীর সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, এই জায়গা আমাদের, রাস্তাও আমাদের। তাই গাছ গুলিও আমাদের। আমি চেয়ারম্যানের কাছে অনুমতি নিয়েই গাছ কেঁটেছি। চেয়ারম্যান সব জানে। আর তাছাড়া আমার জায়গার গাছে কেঁটে বিক্রি করলে আপনি বলার কে ?

এ ব্যাপারে সখিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মানিক সরদারের সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, আমি এখন ব্যাস্ত আছি। পরে কথা বলবো।

সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তহশীলদার শাহ আলম এর সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, ইমনও স্যারের নির্দেশক্রমে সরকারী গাছ কেঁটে বিক্রি করার অপরাধে ফাহিম বেপারীর বিরুদ্ধে ২০ ফেব্রুয়ারী বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সখিপুর থানায় একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেছি।

এ ব্যাপারে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক বলেন, ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমাকে ব্যাপারটি মোবাইলে বলেছেন। তারপর সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তহশীলদার শাহ আলম একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। আমরা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এ ব্যাপারে ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাব্বির আহমেদ বলেন, আমি ঘটনাটি শোনার পর তাৎক্ষণিক ভাবে সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের তহশীলদার শাহ আলমকে ব্যাপারটি তদন্ত করে ফাহিম বেপারীর বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছি। পাশাপাশি সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হককে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছি।

Total View: 465

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter