বুধবার,  ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  রাত ১২:৪৩

স্কুলের শিক্ষক সেজে ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করলেন দপ্তরী

ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৮ , ২১:১০

আবদুল বারেক ভূইয়া
বিদ্যালয়ের দপ্তরী শিক্ষক সেজে ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছেন। এমন একটি ঘটনা ঘটেছে শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার ভোগকাঠি গ্রামে অবস্থিত ২৫ নং ভোগকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।
২১ ফেব্রুয়ারী বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঁপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরণের সহিংস ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশংকা করছেন স্থানীয়রা।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ২৫ নং ভোগকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন প্রতিদিনই বিভিন্ন শ্রেণীর ক্লাশ নেন এবং ছাত্রদেরকে অপ্রয়োজনে মারধর করেন। তারই ধারাবাহিকতায় মহান শহীদ দিবস ২১ ফেব্রুয়ারী উপলক্ষ্যে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। সেই র‌্যালীতে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ইব্রাহীম হাওলাদার এবং রবিন হাওলাদার পাদুকা পড়ে আসলে দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন তাদেরকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন। আহতদেরকে স্থানীয় ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।
আহত ইব্রাহীম হাওলাদার এবং রবিন হাওলাদার বলেন, ২১ শে ফেব্রুয়ারীর র‌্যালী করার সময় আমাদের পায়ে স্যান্ডেল থাকার কারণে স্কুলের দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন আমাদেরকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়েছে। আমাদের বিদ্যালয়ে আসার রাস্তাটি অনেক খারাপ। খালি পায়ে হাটা যায় না। তাই সেন্ডেল পড়ে হাটছিলাম। আমার হাতে অনেক ব্যাথা। সহ্য করতে পারছিলাম না। তাই বাজার থেকে ঔষধ কিনে খেয়েছি।
চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র হুমায়ুন কবির এবং আরিফ হোসেন বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ের দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন আমাদেরকে দিয়ে পায়খানা পরিস্কার করান। কোন অপরাধ ছাড়াই একেক জায়গা দিয়ে মাথার চুল কেঁটে ফেলেন। আমরা লজ্জায় স্কুলে আসতে পারি না ।


দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী লামিয়া আক্তার এবং আরিফা আক্তার বলেন, পড়া না পাড়লেই সাদ্দাম স্যার হাতের কাছে যা পান তাই দিয়ে আমাদেরকে অনেক মারেন। তার ভয়ে আমাদের স্কুলে আসতে ইচ্ছে করে না।
চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র মাহফুজুর রহমানের মা নিলুফা বেগম বলেন, দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন আমার ছেলেকে পড়া না পারার অপরাধে বেঞ্চের সাথে বেঁধে পিটিয়েছে। পড়া না পাড়লে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা শাসন করবে। সেতো শিক্ষক নন। সে আমার ছেলেকে পিটাবে কেন ?
গোসাইরহাট ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার শাহানাজ মৃধা বলেন, ২৫ নং ভোগকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন একজন মাদক সেবী। সে নিয়মিত মাদক সেবনসহ এবং মাদক বিক্রি করে। তার ব্যাপারে আমাদের কাছে অনেক অভিযোগ আসে।
২৫ নং ভোগকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাদাৎ হোসেন বলেন, আমার বিদ্যালয়ের দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন মাঝে মাঝে ক্লাশ নেয় এটা আমি জানি। তবে ছাত্রদেকে মারধর করে তা আমি জানি না।
২৫ নং ভোগকাঠি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবদুল শুক্কুর হাওলাদার বলেন, দপ্তরী সাদ্দাম হোসেন ছাত্রদেরকে পিটিয়েছেন এই সংবাদের প্রেক্ষিতে আমরা স্কুলে এসেছি।
এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালম আজাদ এর সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, আমি ব্যাপারটি জানি না। আমি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে পাঠাচ্ছি। যদি এ ধরণের কোন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Total View: 1150

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter