বৃহস্পতিবার,  ২২শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,  ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,  সন্ধ্যা ৬:২৮

হাসপাতালের আরএমওকে লাঞ্ছিত করলেন জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক

জুলাই ২২, ২০১৯ , ০১:১২

স্টাফ রিপোর্টার
শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে’র বিরুদ্ধে আধুনিক সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে।

২১ জুলাই রবিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় শরীয়তপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে অবস্থিত নিপুন ক্লিনিকের সামনে এ লাঞ্ছিতর ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ডাক্তারদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দার পালং মডেল থানায় অনল কুমার দে’র বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেছন।

এদিকে ডাক্তারদের সংগঠন বিএমএ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি, মানববন্ধন এবং জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারক লিপি প্রদানের কর্মসূচী ঘোষনা করেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে আলাপ কালে জানা যায়, শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে শরীয়তপুর আধুনিক সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারকে নিপুন ক্লিনিকের সামনে মোবাইল করে ডেকে আনেন। সেখানে সুমন কুমার পোদ্দারের সাথে অনল কুমার দে’র কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অনল কুমার দে ও তার সহযোগী সবুজ দত্ত এবং মাসুদ সুমন কুমার পোদ্দারকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি, চর থাপ্পর মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে সুমন কুমার পোদ্দার অসুস্থ্য হয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ ব্যাপারে ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে আমাকে নিপুন ক্লিনিকের সামনে ডেকে নিয়ে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করেছে। কি কারণে আমাকে লাঞ্ছিত করেছে তা আমি জানি না। আমি তার বিচার দাবী করছি।

বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন শরীয়তপুর জেলা শাখার সভাপতি ডাঃ মনিরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে আলাপকালে তিনি বলেন, ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারকে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে লাঞ্ছিত করেছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করার পাশাপাশি মানববন্ধন এবং জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারক লিপি প্রদান করবো।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে’র সাথে মুঠো ফোনে আলাপ করতে চাইলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ খলিলুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, ব্যাপাটি আমি শুনেছি। উভয়ের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আসলাম উদ্দিন বলেন, আমরা হামলার কথা শুনেছি। মামলা হলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Total View: 585

    আপনার মন্তব্য





সারাদেশ

কক্সবাজার

কিশোরগঞ্জ

কুড়িগ্রাম

কুমিল্লা

কুষ্টিয়া

খাগড়াছড়ি

খুলনা

গাইবান্ধা

গাজীপুর

গোপালগঞ্জ

চট্টগ্রাম

চাঁদপুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চুয়াডাঙা

জয়পুরহাট

জামালপুর

ঝালকাঠী

ঝিনাইদহ

টাঙ্গাইল

ঠাকুরগাঁও

ঢাকা

দিনাজপুর

নওগাঁ

নড়াইল

নরসিংদী

নাটোর

নারায়ণগঞ্জ

নীলফামারী

নেত্রকোনা

নোয়াখালী

পঞ্চগড়

পটুয়াখালি

পাবনা

পিরোজপুর

ফরিদপুর

ফেনী

বগুড়া

বরগুনা

বরিশাল

বাগেরহাট

বান্দরবান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ভোলা

ময়মনসিংহ

মাগুরা

মাদারীপুর

মানিকগঞ্জ

মুন্সিগঞ্জ

মেহেরপুর

মৌলভীবাজার

যশোর

রংপুর

রাঙামাটি

রাজবাড়ী

রাজশাহী

লক্ষ্মীপুর

লালমনিরহাট

শরীয়তপুর

শেরপুর

সাতক্ষীরা

সিরাজগঞ্জ

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

Flag Counter